আরও এক ভাই হারালেন শেখ হাসিনা


৭৫ এর ১৫ই আগস্টে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে নি’র্মমভাবে হ’ত্যা করে স্বাধীনতাবিরোধী অ’পশক্তি।শুধু তাঁরা জাতির পিতাকেই হ’ত্যা করেনি, এই সময় খু’নি চক্র হ’ত্যা করে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিবকে এবং শেখ হাসিনা হারান তাঁর তিন সহোদর ভাইকে। এরা হলেন- শেখ কামাল, শেখ জামাল এবং শেখ রাসেল।

অলৌকিকভাবে শেখ হাসিনা জার্মানীতে থাকায় বেঁচে যান। তাঁর হা’রানোর বেদনা নিয়েই ১৯৮১ সালে তিনি দেশে আসেন এদেশের মানুষের মুক্তির জন্য, এদেশের মানুষের গণতন্ত্রের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য। আর এই সময়ে শেখ হাসিনা ভাই হিসেবে পান আরো চারজনকে। যাদের সঙ্গে শেখ হাসিনার আত্মিক স’ম্পর্ক গড়ে উঠেছিল ৭৫ এর পর। ৭৫ এর ১৫ই আগস্টে জাতির পিতাকে হ’ত্যার পর ৩রা নভেম্বর জে’লখানায় হ’ত্যা করা হয় জাতীয় চার নেতাকে।

এ যেন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে আর কোন রাজনৈতিক নেতা না থাকে এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে চিরতরে মুছে ফেলার জন্যেই হ’ত্যা করা হয়েছিল। কিন্তু ভাগ্যের কি নি’র্মম পরিহাস! বঙ্গবন্ধু কন্যা যখন দেশে ফিরে আসেন, তখন এই চার নেতার সন্তানই হন শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত সহচর, শেখ হাসিনার ভাই। এদের মাঝেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর হা’রানো ভাইদের খুঁজতেন।

শেখ হাসিনা তাঁর এক বক্তব্যে বলেছিলেন যে, জাতীয় চার নেতার সন্তানরা, যাদের পিতারা বঙ্গবন্ধুর জন্য জীবন দিয়েছেন, শহীদ হয়েছেন, তারাই আমা’র ভাই। আর একারণেই জাতীয় চার নেতার সন্তানদের আলাদা স্নেহ এবং আলাদা মমতায় আগলে রাখতেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

কিন্তু গতবছর মা’রা যান সৈয়দ আশরাফুল ইস’লাম। সৈয়দ আশরাফুল ইস’লামের মৃ’ত্যুর পর শেখ হাসিনা ভাই হা’রানোর বেদনায় আপ্লুত হয়েছিলেন, তিনি বলেছিলেন যে, আমি এক ভাই হারালাম। সৈয়দ আশরাফুল ইস’লাম ছিলেন সৈয়দ নজরুল ইস’লামের সন্তান।

আর এবার শেখ হাসিনা হারালেন আরেক ভাই মোহাম্ম’দ নাসিমকে। মোহাম্ম’দ নাসিম ছিলেন জাতীয় চার নেতার অন্যতম ক্যাপ্টেন মনসুর আলীর সন্তান এবং শেখ হাসিনার রাজনৈতিক সহযোদ্ধা।এখন আওয়ামী লীগে শুধুমাত্র শহীদ কাম’রুজ্জামানের পুত্র খাইরুজ্জামান লিটন রাজনীতিতে সক্রিয় রয়েছেন।

তিনি রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তাজউদ্দীন আহমেদের সন্তান সোহেল তাজ রাজনীতিতে নেই। তবে শেখ হাসিনার স্নেহবঞ্চিত হননি। তাজউদ্দীন পরিবারের আরেক সন্তান সিমিন হোসেন রিমি এখন জাতীয় সংসদে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিত্ব করেন।

তবে এই জাতীয় চার নেতার সন্তানরাই শেখ হাসিনার প্রতিকূল সময়ের সহযাত্রী ছিলেন এবং শেখ হাসিনার পাশে থেকে তাঁরা দলের ভেতরে এবং বাইরে সংগ্রাম করেছিলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ প্রতিষ্ঠা করার জন্য এবং শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য। আর তাই মোহাম্ম’দ নাসিমের মৃ’ত্যু কেবল একজন নেতার মৃ’ত্যু নয়, মোহাম্ম’দ নাসিমের মৃ’ত্যুর মাধ্যমে শেখ হাসিনা তাঁর আরেকজন ভাইকে হারালেন।


Best bangla site

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *