বরিশাল সোনালী ব্যাংকের ডিজিএম’র বদলী ঠেকাতে কর্মচারীদের গণবদলী

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সোনালী ব্যাংক লিমিটেড বরিশাল কর্পোরেট শাখায় কর্মরত ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মো: গোলাম ছিদ্দিক’র বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। করোনাকালীন সময়ে লকডাউনের মধ্যেও প্রায় অর্ধশতাধিক কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিভিন্ন শাখায় বদলী করেছেন তিনি। যদিও বদলি আদেশে প্রশাসনিক প্রয়োজন উল্লেখ করা হয়েছে।

অভিযোগ উঠেছে কিছুদিন আগে সোনালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় থেকে বরিশাল কর্পোরেট শাখার জিএম মো: জাহিদ হোসেনকে প্রধান কার্যালয়ে এবং ডিজিএম গোলাম ছিদ্দিককে ঢাকা সদরঘাট শাখায় বদলীর আদেশ করা হয়। জিএম মো: জাহিদ হোসেন ইতোমধ্যে প্রধান কার্যালয়ে যোগদান করলেও বহাল তবিয়তে রয়েছেন ডিজিএম মো: গোলাম ছিদ্দিক। আর্থিক লেনদেন সহ নানান তদবিরে নিজের বদলি ঠেকাতে তিনি দৌঁড়ঝাপ করছেন বলে জানিয়েছেন একাধীক ভুক্তভোগীরা।

অপরদিকে প্রধান কার্যালয়কে নিজের কর্মতৎপরতা প্রদর্শনে প্রায় অর্ধ শতাধীক কর্মকর্তা-কর্মচারীকে বদলী করেছেন তিনি। করোনাকালীন দূর্যোগের মধ্যেও এই গণবদলী কতোটা জরুরী ছিল তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে কর্মকর্তা কর্মচারীদের মধ্যে। অধস্থনদের এমন হয়রানী করে নিজের শেষ রক্ষা হবে কি না তা এখন দেখার বিষয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধীক ভুক্তভোগী জানান, ‘এই করোনা কালীন সময়ে আমাদেরকে বদলী করার মতো কোন জরুরী কারণ দেখা দেয়নি। গোলাম ছিদ্দিক স্যার নিজের বদলী ঠেকাতে আমাদের মাথায় আপদ চাপিয়ে দিয়েছেন। যা অনৈতিক বলে মনে করছেন অনেকেই।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কৌশলে এড়িয়ে গিয়ে ডিজিএম গোলাম ছিদ্দিক মোবাইল ফোনে বলেন, ‘আমি এখন প্রচন্ড অসুস্থ, পরে কথা হবে।’


Best bangla site

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *