চিনা মা’র্শাল আর্টের জবাব দেবে ভা’রতের ভ’য়ঙ্কর ‘ঘা’তক’রা!


সীমান্তে উত্তে’জনা অব্যাহত। ভা’রত-চিন, দু’দেশ-ই সীমান্তে নিজেদের শক্তি বাড়িয়ে চলেছে। একদিকে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর চিন যখন মা’র্শাল আর্ট প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত বাহিনী মোতায়েন করছে, তখন পাল্টা জবাব দিতে প্রস্তুত ভা’রতের ‘ঘা’তক’ কম্যান্ডোরাও।

উল্লেখ্য, ১৫ জুন পূর্ব লাদাখের গালোয়ান উপত্যকায় র’ক্তক্ষয়ী সং’ঘর্ষের আগে তিব্বতের স্থানীয় ক্লাবগু’লি থেকে মা’র্শাল আর্ট প্রশিক্ষকদের সে’নাবাহিনীতে নিয়োগ করেছিল চিন।

সূত্রের খবর, চিনা সে’নাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য সম্প্রতি তিব্বতে পাঠানো হয়েছে আরও প্রায় ২০ জন মা’র্শাল আর্ট প্রশিক্ষককে। চিনের এই কৌশল সামনে আসতেই LAC-তে পাল্টা ‘ঘা’তক’ কম্যান্ডোদের মোতায়েন করেছে ভা’রতীয় সে’নাবাহিনী।

কী’ এই ঘা’তক কম্যান্ডো? – বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কম্যান্ডোবাহিনী।

– ৪৩ দিন ধরে তাঁদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

– কর্নাট’কের বেলগামে তাঁদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

– শারীরিক ক্ষমতা আরও বাড়াতে কড়া প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় ‘ঘা’তক’ কম্যান্ডোদের।

– প্রশিক্ষণের সময় ৩৫ কিলোগ্রাম ওজন নিয়ে টানা ৪০ কিলোমিটার ছুটতে হয় কম্যান্ডোদের।

– অ’স্ত্র প্রশিক্ষণ ছাড়াও ঘা’তক কম্যান্ডোদের ‘hand-to-hand combat’-এর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

– মা’র্শাল আর্টে দক্ষ হয় ‘ঘা’তক’ কম্যান্ডোরা।

– ম’রুভূমি ও দুর্গম এলাকার (high altitude) জন্য আলাদা প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় এই ‘ঘা’তক’ কম্যান্ডোদের।

– ঘট’ক কম্যান্ডোদের একটি ইউনিটে একজন অফিসার ও একজন JCO সহ ২২ জন কম্যান্ডো থাকেন।

– ঠিক একইরকমভাবে আরেকটি দল রিজার্ভে প্রস্তুত থাকে।

– ফলে সবমিলিয়ে একটি ইউনিটে ৪০ থেকে ৪৫ জন ‘ঘা’তক’ কম্যান্ডো থাকেন।


Best bangla site

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *