‘আর কোনদিন সংবাদ মাধ্যমে কোন সাক্ষাৎকার দিবো না’


‘আজ জিম ছিল না, সন্ধ্যায় বোরড ছিলাম, মনটাও একটু খা’রাপ। ভাবলাম কিছু যখন করার নেই, কিছু খাই।

দেখলাম নতুন আম আনা হয়েছে, খেলাম। খেতে খেতে ৮টা আম খেয়ে ফেলছি। এখন যেন কেমন লাগছে।’ জনপ্রিয় অ’ভিনেত্রী শবনম ফারিয়ার এমন স্ট্যাটাস থেকে ‘খেতে খেতে ৮টা আম খেয়ে ফেলেছি!’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করেন দেশের শীর্ষ স্থানীয় এক সংবাদপত্র।

এরপরই আলোচনা-সমালোচনার শিকার হন সংবাদমাধ্যমটি ও ফারিয়া।

এ নিয়ে পরবর্তীতে ফারিয়াকে একাধিকবার সাংবাদিকরা ফোন দিলেও তিনি কোনো যোগাযোগ করেননি। কিন্তু ফের একবার স্ট্যাটাস দিয়ে নিজের অবস্থান পরিস্কার করলেন ফারিয়া।

সোমবার (২৯ জুন) বিকেলে দেয়া সেই স্ট্যাটাসে ফারিয়া লিখেছেন, ‘আজ সকাল থেকে অনেক সাংবাদিক ভাইয়েরা কল করছেন! আমি কল রিসিভ করছি না। আমি কারো সাথে কোন বিষয়েই কথা বলতে আগ্রহী না!

যেহেতু এইটাই ট্রেন্ড আপনাদের মধ্যে কেউ কেউ স্টেটাস থেকে কপি করে তা শিরোনাম দিয়ে নিউজ করবে এবং আমি একটু পুরানো খেয়ালের তাই বিষয়টা আমা’র জন্য বেশ বিব্রতকর এবং সম্প্রতি প্রকাশিত একটি সংবাদ এবং তা প্রকাশের পর সাধারন মানুষের যে প্রতিক্রিয়া তা ব্যক্তিগত ভাবে আমা’র জন্য মানহানিকর, বির’ক্তিকর এবং বিব্রতকর!

তাই আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমি আর কোনদিন কোন সংবাদ মাধ্যমে কোন প্রকার সাক্ষাৎকার দিবো না! এমনিতেই অনেক সংবাদকর্মী ভাইয়েরা আমাকে পছন্দ করে না, কল করলে আমি কথা বলতে চাই না, আমাকে নিয়ে নিউজ করলে শেয়ার দেই না, ফোন ধরি না ইত্যাদি অনেক অ’ভিযোগই শুনি। কেন এসব করি তার একটা উদাহ’রণতো আপনাদের চোখের সামনেই দেখলেন!

আমি সব সময়ই বলেছি সাংবাদিক এবং আর্টিস্ট একে অন্যের পরিপূরক, কিন্তু এই পরিপূরক স’ম্পর্ক যদি ব্যাক্তিগত সম্মানে আ’ঘাত করে তাহলে তা থেকে দুরে থাকাই সমিচিন বলে আমি মনে করি।’

শবনম ফারিয়া টেলিভিশন বিজ্ঞাপনে কাজের মাধ্যমে মিডিয়া জগতে প্রবেশ করেন। এরপর ২০১৩ সালে তিনি ‘অল টাইম দৌড়ের উপর’ নাট’কে অ’ভিনয়ের মাধ্যমে আত্মপ্রকাশ করেন। নাট’ক-বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন তিনি। ২০১৮ সালে ‘দেবী’ চলচ্চিত্রে অ’ভিনয় করে শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অ’ভিনেত্রী বিভাগে বাচসা’স পুরস্কার এবং শ্রেষ্ঠ নবীন অ’ভিনয়শিল্পী বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার অর্জন করেন। দর্শকমহলেও ব্যাপক প্রশংসা কুড়ান।


Best bangla site

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *